Search

একজন পুলিশের কিছু কথা

সবাই শেয়ার করে জানিয়ে  দিন সকলকে। প্লিজ কেউ কপি পেস্ট করবেন না।

একজন পুলিশের কিছু কথা

প্রথম প্রকাশ www.dhakamagazine.com

Bd police

Bd police

আমি এক গর্বিত পুলিশ।
পিআরবি এবং পুলিশ আইন বলে একজন পুলিশ ২৪ ঘন্টা অন ডিউটি।

 

একজন যেকোন শ্রেনীর কর্মচারী ৯টা- ৫টা ৮ঘন্টা ডিউটি করে পান মাসিক যে বেতন। একজন পুলিশ অফিসার ২৪ ঘন্টা ডিউটি করে পান একই বেতন। একজন শ্রমিকও ৮ ঘন্টার বেশি কাজ করলে অভার টাইমের টাকা যোগ হয় কিন্তু পুলিশের হয়না। আট ঘন্টা কাজ করে সরকারের অন্যান্য চাকুরীজীবি ১০০০০ টাকা পেলে পুলিশের পাওয়ার কথা ছিল ৩০০০০ টাকা। তার উপর পুলিশের একটা দিনও বন্ধ নাই।

একটা কুকুরও রাত্রিকালে ঘুমায়, আর পুলিশ? আপনার ঘুম যেন ভাল হয়, চোর ডাকাত থেকে রক্ষা, অগ্নি সংযোগ সহ সকল খারাপ লোকদের হাত থেকে সকলের জান মাল রক্ষার জন্য,নিজের ঘুমকে বিসর্জন দিতে হয়। মানে হলো কুকুরও ঘুমায় কিন্তু আমরা ঘুমাইনা।

 

আনর্জাতিক শ্রম আইনে বলা হয়েছে প্রত্যেক শ্রমিক (আমরা সকলেই শ্রমিক) ৮ ঘন্টা কাজ করবে। এর বেশি কাজে বাধ্য করা যাবেনা। এর বেশি কাজ করলে সাধারন বেতনের বেশি হারে ওভারটাইম বেতন পাবে। কিন্তু পুলিশ? পায় নাকি? ডাক্তার হলে চেম্বার থাকত।

 

আমাদের রাষ্ট্র পরিচালিত হয় সরকার দ্বারা। যার আদেশ নির্দেশ মানিত হয় জনগনের নিকট পুলিশ দ্বারা। সেনা, নৌ, বিমান সহ সকল বাহিনী একসাথ ৭ দিনের সকল কার্যক্রম বন্ধ রাখেন আর বোঝার চেষ্টা করেন কি হয় দেশে। আপনি বুঝতেও পারবেন না কি হয়।
অপর দিকে পুলিশের কাজ সারা দেশে একঘন্টার জন্য বন্ধ রাখা হোক, বোঝার চেষ্টা করতে হবেনা, আপনার বোনের ইজ্জত থাকবেনা, দোকানে মাল থাকবেনা, রাস্তায় রেল থাকবেনা, মোড়ে মোড়ে লাশ পাওয়া যাবে, সকল ব্যাবসায় বানিজ্য বেহাত হয়ে যাবে, সরকার পদত্যাগ করবে, আর আপনার পরনের লুঙ্গিটাও খুজে পাওয়া যাবেনা।
জানাজা নামাজে লোক পাওয়া যাবেনা, আপনার মত শান্তি প্রিয় লোকগুলো নিজেকে লুকিয়ে বাচানোর ব্যর্থ চেষ্টা করবে।

 

এরপরেও পুলিশ খারাপ?

দেশের লাখ লাখ লোক তার নিজের চাকরীকে বলে সে ‘সার্ভিস’ করে। আসলে তারা সবাই চাকরী করে। পৃথিবীর বুকে মাত্র ৪ টি পেশা হলো সার্ভিস (ক্যামব্রিজ ডিকশনারী দেখুন)
১। পুলিশিং (Prison service)
২। ডাক্তারি ও নার্সিং (Health servic)
৩। এ্যামবুলেন্স (Ambulance servic)ও
৪। ডাক বা চিঠিপত্র সংক্রান্ত ( Postal service)।

 

৩৪ তম এস আই ব্যাচ, সারদা, রাজশাহী

৩৪ তম এস আই ব্যাচ, সারদা, রাজশাহী

সবার চোখে ঘুষ আর ঘুষ

এতটাকা ঘুষ খায়? অনেকেই শুনেছেন পুলিশ ঘুষ খায়। আপনি কখনো ঘুষ দিয়েছেন? দেননি। তাহলে কেন এই ধারনা? শুনেছেন আপনি? শুনেই বলে বেড়ান পুলিশ খারাপ? আপনার ভাই সেদিন ফেন্সিডিল সহ গ্রেফতার হলো, আপনার সম্মানিত বাবার মুচলেকায় ছেরে দেওয়া হল, আজও কেও জানেনা, কাউকে বলিনি আপনাদের সম্মানের কথা ভেবে। এটাই কি আমাদের দোষ?

পুলিশ এত ঘুষ খায় তারপরও তার একটি বাড়ি নাই ডাক্তারের মত, কর্মহীন রাজনীতিবিদের মত। চাকরীর পাচ বছর পর ডাক্তার ক্রয় করে বাড়ী-গাড়ি, আর পুলিশ চাকরির পাচ বছর পর ক্রয় করে মোটর সাইকেল। আপনার চাকরির ভেরিফিকেশন করার জন্য, তারাতারি ডিউটিতে যাওয়ার জন্য।

এর পরেও দূর্ঘটনায় কেউ মারা গেলে বলা হয় একজন পুলিশসহ পাচজন নিহত।
সালা পুলিশ তোরা কি কোন মানুষও না?

যে নিজে না ঘুমিয়ে অন্যের ঘুমকে নিরাপদ করে, যে ট্রাফিক পুলিশ রোদে পুড়ে আপনার পথ চলা করে নির্বিঘ্ন, যে ঈদের নামাজটিও নিজে পড়তে না পেরে আপনার নামাজকে করে নিরাপদ,

সে আর যাই হোক, সেই পুলিশ শ্রেষ্ঠতম জান্নাতে যাবে ইনশাল্লাহ। এর পুরষ্কার একমাত্র জান্নাত।

জয় হোক সকল পুলিশ সদস্যদের।

উৎসর্গ : বাংলাদেশ পুলিশের সকল সদস্যকে।

লেখক : রবিউল ইসলাম সোহেল

সব কিছুই কাল্পনিক রচনা
www.dhakamagazine.com

 

আমাদের ফেসবুক পেজ   ঢাকা ম্যাগাজিন

comments