Search

হৃদয় খান ও সুজানা বিচ্ছেদ-কি ছিল নেপথ্যের কারন ?

জনপ্রিয় কন্ঠশিল্পী হৃদয় খান ও সুজানার বিবাহ বিচ্ছেদ ও নেপথ্যের কারন।

হৃদয়-সুজানা বিচ্ছেদ হলো মনিপুরি পাড়ায় একটি কাজী অফিসে বসে। ১লা আগষ্ট ২০১৪ সালে অর্থাৎ একবছরও হলোনা তাদের বিয়ের বয়স। বিয়ে করার সময় দেখা গিয়েছিল যে হৃদয় খানের তারাহুরাটাই বেশি ছিল। তারপরেও কেন এত দ্রুত বিচ্ছেদ?

মিডিয়া জগতে প্রায়শ দেখা যায় যে দুজনই মিডিয়া জগতের কারো সংসার খুব বেশি দিন টিকে থাকে না। আবার টিকলেও তাদের সংসারে শান্তি দূরবীন দিয়ে খুজতে হয়।

হৃদয়-সুজানা

হৃদয়-সুজানা

 

হৃদয় খান স্বাক্ষর করা তালাক নামায় আজই সুজানারও স্বাক্ষর করার কথা রয়েছে। বিয়ের প্রথম কিছুদিন সকল স্বামী-স্ত্রীর মধ্যেই প্রচুর ভালবাসা বিরাজ করে। সেটি কয়েকদিন পরেই কমতে থাকে ভালবেসে বিয়ে করা দম্পতিদের। তবে সেটি সকল ক্ষেত্রেই না। যারা সেটেল বিয়ে করে তাদের ভাল সম্পর্কটা তুলনামূলক বেশি দিন থাকে।

হৃদয়-সুজানা

হৃদয়-সুজানা

সুজানা বলেছেন যে তাদের প্রথম দিকে সম্পর্কটা অনেক ভাল যাচ্ছিল।কিন্তু কিছু দিন পরে তাকে নিয়ন্ত্রন শুরু করে। অভিনয় নিয়ে নানা মুখি কথা বলতে থাকে। আস্তে আস্তে তাদের ভালবাসা তিক্ততায় রুপ নেয়। গত চার মাস আলাদা থাকার পরে তাদের আজ বিচ্ছেদ হলো। সুজানা হৃদয় খানের উদ্যেশ্যে বলেছেন ‘ওর আরো ম্যাচুরিটি দরকার’।

লাইক দিন এখানে ঢাকা ম্যাগাজিন

comments